নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম বাড়ছেই

মগের মুল্লুক (নাকি শেখের মুল্লুক?) যাকে বলে। ভোজ্যতেল আমদানিতে পাঁচ শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারের পর মিলগেটে প্রতি লিটার সয়াবিনের মূল্য নির্ধারণ করা হলো ৯২ টাকা, যা আগে সরকার নির্ধারণ করেছিল ৮৮ টাকা। বাজারে খোলা সয়াবিন প্রতি লিটার ১১৫-১১৭ টাকা, বোতলজাত (৯শ গ্রাম) ১০৫ থেকে ১২০ টাকা এবং ৫ লিটার বোতল ৫৭০-৫৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
এদিকে ওএমএস চালের লাইন শুধুই লম্বা হচ্ছে। তাছাড়া কালো বাজারে বিক্রি হয়ে যাচ্ছে ফেয়ার প্রাইজ কার্ডের চাল। চালের বাজার স্থিতিশীল থাকলেও লাগামহীনভাবে বাড়ছে, ডাল, মরিচ, চিনি, আটাসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম। চিনি গত সপ্তাহের তুলনায় ২ টাকা বেড়ে ৬৬ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ৬০ থেকে ৬২ টাকা এক মাস আগে ছিল ৫৫ থেকে ৫৮ টাকা। শুকনো মরিচেরও সংকট দেখা দিয়েছে। গত সপ্তাহের তুলনায় ২০ টাকা বেড়ে ২শ ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
শুক্রবারের বাজার দর
চাল-মিনিকেট পাইকারি ৪৯-৫০ টাকা, খুচরা ৫২-৫৩ টাকা, পারি পাইকারি ৪০ টাকা, খুচরা ৪২-৪৩ টাকা, বি আর (২৮) পাইকারি ৪৭-৪৮ টাকা, খুচরা ৪৯-৫০ টাকা, নাজির পাইকারি ৪৪-৪৮ টাকা, খুচরা ৪৯-৫২ টাকা, স্বর্ণা পাইকারি ৩৫-৩৬ টাকা, খুচরা ৩৭-৩৮ টাকা, মোটা চাল পাইকারি ৩৪-৩৫ টাকা, খুচরা ৩৬-৩৭ টাকা, হাসকি পাইকারি ৩৫-৩৬ টাকা খুচরা ৩৭-৩৮ টাকা, পোলাও চাল ৯০-৯৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আটা ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা, প্যাকেট ২ কেজি ৭২ টাকা, ময়দা ৪২-৪৪ টাকা, ২ কেজি প্যাকেট ৮৮-৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মসুর ডাল দেশি ১১৫-১২০ টাকা, ক্যাঙ্গারু ১১০-১১৫ টাকা, মোটা দানা ৮০-৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
মসলার মধ্যে দেশি আদা প্রতি কেজি ৯০-১০০ টাকা, (চায়না) ৫০-৫৫ টাকা, রসুন ১৩৫- ১৮০ টাকা, পেঁয়াজ ২৫-৩০ টাকা, শুকনা মরিচ ২০০-২৩০ টাকা, হলুদ ৩শ ২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
সবজির সরবরাহ ভাল হওযায় গত সপ্তাহের তুলনায় বেগুন, মুলা, টমেটো, আলু, শিমের দাম কমেছে। প্রতি কেজি করলা বিক্রি হচ্ছে ৯০-১০০ টাকা এবং ঢেড়স ৫০-৬০ টাকায়। শিম ২৫ টাকা, মুলা ১২ টাকা, গোল বেগুন ২৫ টাকা, ধুনদুল ৩৫ টাকা, গাজর ১৫ টাকা, ফুল কফি ২০ টাকা, পাতা কফি ১৫ টাকা, মরিচ ৪০ টাকা, টমেটো ১৫-২৫ টাকা।
গত সপ্তাহের তুলনায় ব্রয়লার মুরগি প্রতি কেজিতে ৫ টাকা বেড়ে ১৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া দেশি মুরগি ৩০০-৩২০ টাকা, গরু মাংস প্রতি কেজি ২৫০-২৬০ টাকা, খাসি ৪০০-৪৫০ টাকা। রুই মাছ প্রতি কেজি ১৮০-২০০ টাকা, ইলিশ মাছ প্রতি কেজি ৪শ থেকে ৪শ ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সোর্স : শীর্ষনিউট ডটকম

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.