পুঁজিবাজার বিপর্যয়ে মুহিত দায়ী!

অর্থমন্ত্রীর হাস্যোজ্জল বক্তব্য কি প্রমাণ করে না পুঁজিবাজারে অব্যাহত দরপতন সরকারের পূর্ব পরিকল্পিত? অনেক দিন ধরেই শেয়ার বাজার অতিমূল্যায়িত হয়েছে, বিশেষজ্ঞরা ছিলেন উদ্বিগ্ন, তবে সরকার ছিলো বরাবরই গাছাড়া। উদ্দেশ্য ছিল পরিস্কার, শেয়ারবাজারকে চরমভাবে উত্তপ্ত করে হাঠৎ করেই লাখ লাখ বিনিয়োগকারীকে পথে বসিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করা। অতিমূল্যায়িত হওয়ার সময় কোন  পদক্ষেপ নেয়া হয় নি অথচ বাজার কারেকশনের নামে প্রতিদিন পরিকল্পিতভাবে শেয়ারবাজারে ধ্বস নামাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী। গতকালও যেমন বললেন, বাজারে সরকারী প্রতিষ্ঠানের শেয়ার আসছে, তাই অনেকেই কারসাজি করে দাম কমাচ্ছেন এবং তা বন্ধ করতে গিয়েই নাকি গতকালের ভয়াবহ দরপতন ঘটেছে, এমনটাই বললেন অর্থমন্ত্রী। তার মানে কি? ইচ্ছে করেই তিনি যখন খুশী তখন শেয়ারের দাম কমাচ্ছেন, আবার কখনো একটু দাম বাড়িয়ে প্রতারিত করছেন লক্ষ লক্ষ ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের। নিজের দোষ একবার তিনি স্বীকার করেছেন, সবাই ভেবেছিল এবার তিনি পদত্যাগ করবেন, তার দলের ভেতর থেকেও পদত্যাগের কথা উঠেছে। অথচ তিনি দিন দিন বেহায়াপনার চরম নজির স্থাপন করে চলেছেন। কোন ভদ্রলোকের পক্ষে পুঁজিবাজারে এতটা কারচুপির পরও মন্ত্রীত্বের চেয়ারে সিন্দাবাদের ভুতের মতো জেঁকে বসা সম্ভ নয়। আর ভদ্রলোক বলিই বা কি করে, যিনি লক্ষ লক্ষ ক্ষুদ বিনিয়োগকারীকে পথে বসাতে পারেন তিনি মন্ত্রী হতে পারেন, তবে ভদ্রলোক কিছুতেই নয়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.