ঘ্যান ঘ্যানে বিরক্ত হয়ে নির্বাচনে সেনা মোতায়েন

নির্বাচনে সেনা মোতায়েনের দাবীকে শুধু বিরোধী দলের নয়, নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী অধিকাংশ প্রার্থীর। সেনা মোতায়েন হলে জনসাধারণ অনেকটা নির্ভয়ে নির্বাচনে অংশ নিতে পারে। বিরোধী দলের এমন একটি স্বাভাবিক ও যৌক্তিক দাবীতে প্রধান নির্বাচন কমিশনার মহা বিরক্ত হলেন। তার ভাষায় বার বার ঘ্যান ঘ্যান করে বিরক্ত করায় তিনি নির্বাচনে সেনা মোতায়েনে বাধ্য হয়েছেন। নির্বাচন কমিশনের উচিত নয়, হিতাহিত জ্ঞানশূণ্য হয়ে যা ইচ্ছে তাই বলে বেড়ানো। নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের জন্য, আর নির্বাচনটি হয় প্রধানত রাজনৈতিক দলগুলোর মাঝে। তাই যাদের নিয়ে নির্বাচনী আয়োজন তথা নির্বাচন কমিশন গঠিত হয়েছে যাদের জন্য সে সকল রাজনৈতিক দলগুলোর নেতৃবৃন্দদের  সম্পর্কে পরিপূর্ণ শ্রদ্ধা রেখেই নির্বাচন কমিশনের বক্তব্য দেয়া উচিত। আর নির্বাচনের মতো একটি স্পর্শকাতর বিষয়ে যদি তিনি ধৈর্য ধারণ করতে না পারেন, যৌক্তিক দাবীতেই বিরক্ত হয়ে যান তবে তার উচিত নয় প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্বে অহেতুক বসে থাকা।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের শিষ্ঠাচার বহির্ভূত বক্তব্যের তীব্র নিন্দা জানাই।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.