লাশের রাজনীতি


রাজা যায় রাজা আসে নূর হোসেনদের লাশের সিঁড়ি মাড়িয়ে, তবু গণতন্ত্রের মুক্তি মেলে না, স্বৈরাচার নিপাত যায় না।
স্বৈরাচার এরশাদকে সিংহাসন থেকে টেনে হিঁচড়ে নামাতে শেখ হাসিনা রাজনীতির বলির পাঠা বানিয়েছিলেন শহীদ নূর হোসেনকে, উৎসর্গীত পশুর মতো বুকে “স্বৈরাচার নিপাত যাক//” পিঠে “গণতন্ত্র মুক্তি পাক//” স্লোগানে সাজিয়ে মিছিলে পেছন থেকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল তাকে, এমটাই মনে করেন সাবেক স্বৈরশাসক হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। আমরা দেশবাসীও অবাক বিস্ময়ে প্রতিনিয়ত অবলোকন করি একের পর এক আওয়ামী লাশের রাজনীতি।

Continue reading “লাশের রাজনীতি”

তথ্য সন্ত্রাস ও বর্বরতার শিকার ইসলামী আন্দোলন

২৮ অক্টোবর ২০০৬। পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের ছুটির পরে প্রথম অফিস। পুরো অফিস জুড়ে ছুটির আমেজ। কোলাকুলি, গালাগালি (গালে গালে যে মিলন), কুশল বিনিময় করেই অফিস শেষ করে দুপুরে বেড়িয়ে পড়ি। অফিসের অবসরে [email protected]@!162202 [email protected]@!162203 নামে একটা ব্লগ পোস্ট করেছিলাম, রাজনৈতিক ময়দান যে কতটা উত্তপ্ত হতে পারে তার একটা আশংকা লিখেছিলাম পোস্টে। তাই অফিস শেষ করে একটু পল্টন ময়দান ঘুরে দেখতে ইচ্ছে হলো খুব।

দুপুর সোয়া একটায় অফিস থেকে বেড়িয়ে পল্টন ময়দানের কাছাকাছি এসে দেখলাম পুরোটাই পুলিশের দখলে। পুলিশের বেস্টনি ভেদ করে পল্টন ময়দানের দিকে যাওয়ার দু:সাহস হলো না বিধায় ধীরে ধীরে দৈনিক বাংলা মোড় হয়ে পল্টন মোড়ের দিকে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলাম। কিন্তু দৈনিক বাংলা মোড়ের কাছে জামায়াতে ইসলামীর কর্মীদেরকে দেখলাম পুরো রাস্তাটা মানববন্ধনি দিয়ে ঘিরে রেখেছে। কিছুতেই কাউকে রায়তুল মোকাররমের উত্তর পার্শ্বের রাস্তায় ঢুকতে দিচ্ছে না। একটু এদিক ওদিক করে অপেক্ষাকৃত দূর্বল একটা দিক থেকে আস্তে করে ঢুকে পড়লাম। মুখে হালকা ছাগুলে দাড়ি থাকায় কিছুটা দ্বিধা সত্ত্বেও ভেতরে ঢুকতে দিল। আসলে দলটাতো কট্টর আস্তিক অর্থাৎ বিশ্বাসীদের দল। খুব সহজেই ওরা বিশ্বাস করে এবং কখনো কখনো মানুষকে বিশ্বাস করে চরমতম মূল্য দিতে হয় ওদের। Continue reading “তথ্য সন্ত্রাস ও বর্বরতার শিকার ইসলামী আন্দোলন”

হোলি মোবারক

বিশ্বের সবচেয়ে শান্তিপ্রিয় জাতি হিসেবে বাঙালী জাতির ব্যাপক পরিচিত রয়েছে। বারো মাসে তেরো পার্বন। সারা বছরই একটা না একটা উৎসব লেগেই থাকে এ দেশে। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বাংলাদেশে ইসলামী অনুষ্ঠানগুলো যেমনি আড়ম্বরের সাথে পালন করা হয়, অন্যান্য ধর্মের অনুষ্ঠানও সমান গুরুত্বের সাথে উৎযাপিত হয় এখানে। এমন কি ভিন্ন দুটি ধর্মের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় অনুষ্ঠানও একই সময়ে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে মহানন্দে উৎযাপিত হওয়ারও ইতিহাস আছে। এছাড়া ঈদের সাথে একুশে ফেব্রুয়ারীসহ জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানও বিভিন্ন সময়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় সমারোহে পালিত হয়েছে।

গত ২৫ অক্টোবর ২০০৬ পালিত হলো মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। ঈদ মোবারক শব্দটির যতটুকু চর্চা হয়েছে তার চেয়েও বেশী হয়েছ সংলাপ নামক মন্ত্র উচ্চারণ। কুশল বিনিময়ের পরেই সংলাপ নিয়ে সংলাপ, যুক্তি, পাল্টা যুক্তি মোটকথা পুরো ঈদ জুড়েই ছিল টানটান উত্তেজনা।

ঈদ শেষ হতেই সেই টান টান উত্তেজনার অবসান ঘটিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক হোলি খেলা। রক্তের নেশায় উন্মত্ত সারাদেশ, দ্বিগিদিক হোলিখেলার সাজসাজ রব পরে গেছে, এখন শুধু রক্ত চাই, রক্ত। Continue reading “হোলি মোবারক”