গৃহযুদ্ধের চেয়ে হরতাল শ্রেয়!

আওয়ামী সরকারের সোয়া তিন বছরে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাসহ শতাধিক গুম সফল হয় যারমধ্যে গত তিন মাসেই ২৩ জন এবং দুই সপ্তাহে সিলেট বিএনপি ও ছাত্রদলের তিনজন গুম হয়।   ১৮ এপ্রিল ২০১২ তারিখ গুম  হওয়া বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এম. ইলিয়াস আলীর মুক্তির দাবীতে আজ তৃতীয় দিনের মতো দেশব্যাপী চলছে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল। গত বরিবারের মধ্যে ইলিয়াস আলীকে জীবিত ফেরত না দিলে লাগাতার হরতালের হুমকি বিএনপি আগেই দিয়েছিল, তবু রবিবারের ১ দিনের হরতাল ঘোষণায় সরকারী শিবিরে অনেকটা স্বস্তির শীতল হাওয়া বয়ে যেতে শুরু করে। এমনকি বিএনপি নেতা চৌধুরী আলম গুম হওয়ার পরে দীর্ঘ দু’টি বছর অতিবাহিত হলেও বিএনপির পক্ষ থেকে কার্যত তেমন কোন কার্যকর প্রতিরোধ গড়ে তোলা সম্ভব হয় নি। সঙ্গত কারনে এম. ইলিয়াস আলীর মুক্তির দাবীতে ১ দিনের হরতাল ঘোষণায় আওয়ামী লীগ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছিল। তাদের ধারণা ছিল, এক-দু’ দিনের হরতালকে যদি পুলিশী দমন নির্যাতনের মাধ্যমে প্রতিহত করা যায় তবে চৌধুরী আলমের মতো ইলিয়াস আলীর মতো শক্তিশালী জনপ্রতিনিধিকেও হজম করে ফেলা সম্ভব হবে, এভাবেই সম্ভব হবে বিএনপির নেতৃত্বকে ধীরে ধীরে মেধাশূন্য করা। Continue reading “গৃহযুদ্ধের চেয়ে হরতাল শ্রেয়!”

ইসলাম বিরোধী আ’লীগ সরকারের বর্বরতা থেকে সর্বশক্তিমান আল্লাহর কাছে আশ্রয় চাই

أعوذ بالله من الشيطان الرجيم Continue reading “ইসলাম বিরোধী আ’লীগ সরকারের বর্বরতা থেকে সর্বশক্তিমান আল্লাহর কাছে আশ্রয় চাই”

রক্ষীবাহিনীর বর্বরতায় বেপরোয়া আওয়ামী লীগ, বিপন্ন মানবতা

প্রকাশ্যে, ইলেক্ট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়া কর্মীদের ক্যামেরার ক্লিক ক্লিক শব্দ আর ফ্লাসের ঝলকানি উপেক্ষা করে জাতীয় সংসদের সামনে নির্মমভাবে আঘাতে আঘাতে আহত করা হলো জাতীয় সংসদেরই বিরোধী দলীয় চীপ হুইপ জয়নুল আবদীন ফারুককে। মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচতে ছুটে যেতে চেয়েছিলেন ন্যাম ফ্লাটের নিজের আবাসে। দাবড়িয়ে ধরা হলো তাকে, গরুর মতো পেটানো হলো লিফটের মাঝে। টেনে হিচড়ে পিকআপ ভ্যানে তুলে চলন্ত পিকআপ ভ্যান থেকেই ফেলে দিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হলো তাকে। লাঞ্ছিত করা হলো সংসদের মহিলা সদস্য শাম্মী আক্তারকে। জয়নুল আবদীন ফারুকের রক্তে ভেসে যাওয়া শাম্মীর সাদা কামিজ যেন ধর্ষিত গনতন্ত্রেরই প্রতিচ্ছবি। Continue reading “রক্ষীবাহিনীর বর্বরতায় বেপরোয়া আওয়ামী লীগ, বিপন্ন মানবতা”

ধর্মদ্রোহীদের বিরুদ্ধে হরতাল সফল হোক!

আজ রবিবার,১২ জুন সকাল ৬টা থেকে ১৩ জুন সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত একটানা ৩৬ ঘণ্টা দেশব্যাপী সর্বাত্মক হরতাল কর্মসূচি পালন করছে সমমনা ১২টি দল; বিএনপি, জামায়াতে ইসলামী, ইসলামী ঐক্যজোট, বিজেপি, খেলাফত মজলিস, জাগপা, বাংলাদেশ লেবার পার্টি, মুসলিম লীগ, ন্যাপ (ভাসানী), বাংলাদেশ ন্যাপ, এনডিপি ও এনপিপি এবং শুধু আগামীকাল সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে সম্মিলিত ওলামা-মাশায়েখ পরিষদ। দলগুলোএ দাবীদাওয়ার মধ্যে রয়েছে, একতরফা নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাতিল,সংবিধান থেকে আল্লাহর ওপর আস্থা ও বিশ্বাস মুছে ফেলা, মুসলিম বিশ্বের সঙ্গে সুসম্পর্কের ধারা বিলুপ্তির অপচেষ্টা, বিদেশের সাথে সকল চুক্তি সংসদে পেশ করার ধারা বাতিল, রাষ্ট্র পরিচালনায় সীমাহীন ব্যর্থতার, দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি,আইনশৃঙ্খলার অবনতি,গ্যাস-বিদ্যুত্-পানি সঙ্কট,পুঁজিবাজার থেকে ৩৩ লাখ বিনিয়োগকারীর অর্থ লুট, ধর্মহীন জাতীয় শিক্ষানীতি, নারীর প্রতি অবমাননাকর বৈষম্যমূলক নারীনীতি অনুমোদন, ফতোয়া নিষিদ্ধের চক্রান্ত, ফরজ বিধান বোরকা বা পর্দাকে ঐচ্ছিককরণসহ ইসলাম নির্মূলের বিভিন্ন পদক্ষেপ এবং তথাকথিত যুদ্ধাপরাধের মিথ্যা অভিযোগে গ্রেফতারকৃত জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতৃবৃন্দের মুক্তি। তবে যে দাবীগুলোর ব্যাপারে সকল দল ঐক্যবদ্ধ তার মধ্যে মৌলিক দু’টি বিষয় হলো তত্ত্বাবধায়ক সরকার বাতিল ও সংবিধান থেকে আল্লাহর ওপর পূর্ণ আস্থা ও বিশ্বাস ধারাটি বাতিলের প্রতিবাদ। Continue reading “ধর্মদ্রোহীদের বিরুদ্ধে হরতাল সফল হোক!”

তত্ত্বাবধায়ক সরকার ইস্যু : সুখে থাকলে হাইকোর্ট কিলায়

সুখে থাকলে ভুতে কিলায় বলে একটা কথা চালু আছে সমাজে। এখন তো দেখি সুখে থাকলে হাইকোর্ট কিলায়। না, দেশ ঠিক সুখে ছিল বলা যাবে না বরং তীব্র অ্যাসিডিটিতে আক্রান্ত উচ্চপদস্ত কর্মকর্তার মতো একবুক জ্বালা নিয়ে থমকে ছিল। তবে আদালতের অযাচিত হস্তক্ষেপে হঠাৎ করেই বাংলাদেশ উত্তপ্ত কড়াই থেকে সরাসরি দোযখে পতিত হলো। আদালতের রায় শিরোধার্য, আর তাই আদালতের রায় মেনে বাংলাদেশের শিরচ্ছেদ করার মহাযজ্ঞ শুরু হলো। যেন মানুষ নয়, পৃথিবীতে টিকে থাকার একমাত্র অধিকার আইন-আদালতের। হাতুড়ে ডাক্তারের মতো যে কোন সমস্যার এক দাওয়াই, আদালত নামের মহাতীৎকুটে কুইনাইন। আরোগ্য হলে তো ভালো, না হলে মরুক গিয়ে, জনসংখ্যার ভারে ভারাক্রান্ত বাংলাদেশ জঞ্জাল মুক্ত হলো, এটাই যেন বড় পাওয়া। অথচ “প্রয়োজনের কারণে আইনসম্মত এবং জনগণের নিরাপত্তাই সর্বোচ্চ আইন, রাষ্ট্রের নিরাপত্তাই সর্বোচ্চ আইন”, সুপ্রাচীনকাল ধরে চলে আসা নীতিমালা ভুলতে বসেছে আদালত। একবারও ওরা ভেবে দেখে না, আইন-কানুন মানুষের কল্যাণেই। যে আইনে মানুষের অকল্যাণ সে তো আইন নয়, অভিশাপ; অবশ্যই তা পরিত্যাজ্য। Continue reading “তত্ত্বাবধায়ক সরকার ইস্যু : সুখে থাকলে হাইকোর্ট কিলায়”

পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা হরতালে সমর্থন দিলেন

বিএনপি’র ডাকা আজকের হরতালের প্রতি সমর্থন দিয়েছে পুঁজিবাজারে ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীরা। রোববার সপ্তাহের প্রথম দিনে ব্যাপক দরপতনের মধ্য দিয়ে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে লেনদেন শুরু হলে বিক্ষুব্ধ বিনিয়োগকারীরা রাস্তায় নেমে আসে। এসময় ক্ষুব্দ বিনিয়োগকারীরা অর্থমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর, এসইসি কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্টদের পদত্যাগের দাবিতে শ্লোগান দেয়। বিক্ষোভের মুখে মতিঝিলের রাস্তায় যান চলাচল বন্ধ করে দেয় পুলিশ। পরে ডিএসইর সামনে তাৎক্ষণিক সমাবেশে বিএনপি ডাকা হরতালের প্রতি  সমর্থন ঘোষণা করে তারা। উল্লেখ্য, মুন্সীগঞ্জের আড়িয়ল বিলে বিমানবন্দর নির্মাণের প্রকল্প বাতিল, খালেদা জিয়াসহ বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার, শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারি ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে এ হরতাল আহ্বানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। হরতালে শেয়ারবাজারের বিনিয়োগকারী ছাড়াও বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ও অন্যান্য শরীক দলগুলো সমর্থন দিয়েছে।

সরকারী দল যদিও বিশ্বকাপ ক্রিকেটের দোহাই দিয়ে এ হরতাল প্রত্যাহারের আহ্বান জানিয়েছে, তারপরও বিশ্বকাপ উপলক্ষে রাজধানীকে সাজানোর প্রক্রিয়ায় হরতাল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে হয়। বিশেষ করে হরতালে পরিবহন শ্রমিক ও মালিকেরা রাস্তায় গাড়ী না বের করে পুরনো গাড়ীগুলো রং করে সাজানোর সুযোগ পাবে। উল্লেখ্য  ১০ তারিখের মধ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রামের গাড়ী-বাড়ীতে রং করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে, অন্যথায় মোবাইলকোর্টে ব্যবস্থা গ্রহনেরও হুমকি দিয়েছে সরকার।

বরিশালে বিএনপির মিছিলে পুলিশের বেধড়ক লাঠিচার্জ : ভেঙেছে এমপি সরোয়ারের হাত

শেয়ার কেলেঙ্কারীর প্রতিবাদে সিলেটে সকাল সন্ধ্যা হরতাল

ডিএসই ও সিএসই ক্যাসিনোয় ভয়াবহ দরপতনের ফলে  বন্ধ হয়ে গেছে  লেনদেন।  আজ দুপুর ১টায় লেনদেন শুরু হওয়ার ৫ মিনিটের মধ্যে সূচক ৬০০ পয়েন্ট পড়ে গেলে লেনদেন বন্ধ হয়ে যায় এবং আগামী রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ক্যাসিনো দু’টির সকল লেনদেন বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে সিকিউরিটিজ এন্ড একচেঞ্জ কমিশন। এদিকে শেয়ার কেলেঙ্কারীর প্রতিবাদে সিলেটে আগামী রোববার সকাল সন্ধ্যা হরতালের ডাক দিয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।   জুয়ারীদের কারসাজী, সিকিউরিটিজ এন্ড একচেঞ্জ কমিশন ও বাংলাদেশ ব্যাংকের ইচ্ছাকৃত উদাসীনতা, গভর্নরের হঠকারী সিদ্ধান্ত এবং সর্বোপরি সরকারের সীমাহীন ব্যর্থতায় আস্থাহীনতায় আক্রান্ত শেয়ার বাজারের ধসের গতি স্লথ করতে নিত্য নতুন নিয়ম চালু করে চলেছে নীতি নির্ধারকেরা, যদিও তাতে পতনের গতি আরো দ্রুততর হচ্ছে বলেই মনে হয়। Continue reading “শেয়ার কেলেঙ্কারীর প্রতিবাদে সিলেটে সকাল সন্ধ্যা হরতাল”

আলেমদের দাবী অযৌক্তিক : এইচ টি ইমাম

অবশেষে থলের বেড়াল বেড়িয়ে পড়েছে। অতীতের মতো এবারও আওয়ামী লীগ মড়কফুলের মতো পবিত্র তাদের চারিত্রিক মাধুর্য ফুটিয়ে তুলেছে। প্রধানমন্ত্রীর সংস্থাপন ও প্রশাসন বিষয়ক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম স্পষ্টতই জানিয়ে দিলেন আলেম সমাজের সাথে আওয়ামী প্রতারণার কথা। বললেন, সম্মিলিত ওলামা পরিষদের দাবী দাওয়া বিবেচনার কোন প্রতিশ্রুতিই তিনি দেন নি। তার এ বক্তব্যে পুরো দেশবাসী হতবাক হয়েছে, ঠিক যেমনটি হয়েছিল গতকাল হরতাল স্থগিতের ঘোষণায় ধর্মপ্রাণ মুসলিম সমাজ। সম্মিলিত ওলামা পরিষদ ধর্মপ্রাণ সাধারণ মানুষের আবেগকে সম্পূর্ণরূপে উপেক্ষা করে খৃস্টানদের বড়দিন উদযাপন নির্বিঘ্ন করণে এবং এইচটি ইমাম ও নানকের প্রতিশ্রুতিতে ভরসা করে যেভাবে দেশবাসীকে হতাশ করেছিল, রাত পোহাতেই তার চেয়েও বড় প্রতারণার খবর আল্লাহ তা’লা তাদের শুনিয়ে দিলেন।

Continue reading “আলেমদের দাবী অযৌক্তিক : এইচ টি ইমাম”

আওয়ামী কূটকৌশলে হেরে গেলো আলেম সমাজ!

দাবী-দাওয়া পূরণের আশ্বাসে ২৬ ডিসেম্বরের হরতাল স্থগিত

জাতীয় শিক্ষানীতি সংশোধনের দাবিতে সম্মিলিত ওলামা পরিষদের ডাকা ২৬ ডিসেম্বরের হরতাল স্থগিত করা হয়েছে। খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের বড়দিন ভালমতো উদযাপনের স্বার্থে এবং ওলামা মাশায়েখদের দাবি-দাওয়া সরকারের বিবেচনার আশ্বাসের প্রেক্ষিতে হরতাল ২৫ জানুয়ারী পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে বলে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য আব্দুল লতিফ নেজামি এ ঘোষণা দেন। তবে সরকার যদি তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা না করে তবে আবারও হরতাল দেয়ার ঘোষণা দেয়া হবে। তবে ভবিষ্যতে কি হবে তা কারো জানা না থাকলেও এবারের মতো রাজনীতির কূটকৌশলে আওয়ামী লীগ যে আরেকবার সাধারণ মানুষকে বোকা বানালো তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। সম্মিলিত ওলামা মাশায়েখ পরিষদ যতই বলুক না যে সরকার তাদের দাবী দাওয়া মেনে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন কিন্তু দুপুর গড়ানোর আগেই কিন্তু সরকারের স্পষ্টভাষী প্রভাবশালী আইনমন্ত্রী (যিনি প্রধানমন্ত্রীর ছেলেমানুষি বক্তব্য নিয়েও তামাশা করতে ছাড়েন না) সমাবেশে বলেই ফেললেন, ওলামাদের শুভবুদ্ধির উদয় হওয়ায় হরতাল প্রত্যাহার করেছেন, হরতালটি যে বিনা কারণে (!) তা উল্লেখ করতেও ছাড়েন নি। হরতাল ডাকায় যে আলেমদের একাত্তরে পাকিস্তানী হায়েনাদের চেয়েও খারাপ বলে গালি দিলেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী, গালি দিলেন মহিউদ্দিন খান আলমগীরসহ আরো নেতৃবৃন্দ, সবকিছু ভুলে গিয়ে, ইসলামের কথা ভুলে গিয়ে, ইসলামী শিক্ষা ও সংস্কৃতি রক্ষার কথা ভুলে গিয়ে, বড়দিনের পরের দিন হরতাল করলে খ্রিস্টানদের কষ্ট হবে এমন অদ্ভুত যুক্তিতে, এইচটি ইমাম  ও নানকের প্রতিশ্রুতিতে আলেম সমাজ এভাবে বিভ্রান্ত হবেন, তা জাতিকে পুরোপুরি হতাশ করেছে।

Continue reading “আওয়ামী কূটকৌশলে হেরে গেলো আলেম সমাজ!”