প্রাপ্তি বসে আছে নেটের ওপারে, আপনারই জন্য

প্রাপ্তিকে কাছে থেকে দেখার আগ পর্যন্ত কিছুতেই শান্তি পাচ্ছিলাম না। কষ্টটা সারাণ শুধু খুঁচিয়ে মারছিল।
দুপুরে এক পশলা বৃষ্টি হয়ে গেছে, সন্ধ্যায় প্রাপ্তির বাসায় নির্বিঘ্নে যেতে পারবো কি না, এই ভেবে পেরেশান হচ্ছিলাম। ঝড়ো হাওয়ার অফিস মতিঝিলের কোথাও, পরিচয়টা জানা থাকলে হয়তো একসাথে যাওয়া গেত, দু’জন একসাথে থাকলে অন্তত মনে বল পাওয়া যায়।
বিকেল সাড়ে পাঁচটায় অফিস ছেড়ে প্রাপ্তি সোনার বাড়ীর দিকে রওয়ানা হলাম। কিন্তু বিধি বাম, জ্যাম ঠেলে প্রাপ্তির বাসায় যেতে প্রতিটি সেকেন্ডে আমি প্রাপ্তিকে দেখার জন্য অধর্য হয়ে উঠছিলাম। Continue reading “প্রাপ্তি বসে আছে নেটের ওপারে, আপনারই জন্য”

প্রাপ্তির জন্য বুকভরা ভালোবাসা

প্রাপ্তি আমাকে ঘুমুতে দেয় না।
যখন তখন সামনে এসে হানা দেয়, আমার জন্য কি এনেছ চাচ্চু?
আমি লজ্জায় মুখ লুকাই। দারিদ্র আমাকে আষ্টেপৃষ্ঠে বেঁধে রেখেছে।

মাঝে মাঝে দারিদ্র বন্ধুর মতো পাশে এসে শান্তনা দেয়। কাধে হাত রেখে বলে, প্রাপ্তি তোমার কে যে তার জন্য তোমার কিছু করতেই হবে। সমাজে হাজারটা শিশু হাসপাতালে মৃতু্য যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে, সবারতো আর উপকার করতে পারবে না। প্রাপ্তির জন্য কিছু করতে না পারলে শুধু শুধু কষ্ট পাওয়ার কি আছে? Continue reading “প্রাপ্তির জন্য বুকভরা ভালোবাসা”