নরপশুদের পাথর নিক্ষেপে হত্যার অনুমতি চাই

“ব্যভিচারিনী ও ব্যভিচারী উভয়ের প্রত্যেককে এক শত বেত্রাঘাত করো৷ আর আল্লাহর দীনের ব্যাপারে তাদের প্রতি কোন মমত্ববোধ ও করুণা যেন তোমাদের মধ্যে না জাগে যদি তোমরা আল্লাহ ও শেষ দিনের প্রতি ঈমান আনো ৷ আর তাদেরকে শাস্তি দেবার সময় মু’মিনদের একটি দল যেন উপস্থিত থাকে ৷ ব্যভিচারী যেন ব্যভিচারিনী বা মুশরিক নারী ছাড়া কাউকে বিয়ে না করে এবং ব্যভিচারিনীকে যেন ব্যভিচারী বা মুশরিক ছাড়া আর কেউ বিয়ে না করে ৷ আর এটা হারাম করে দেয়া হয়েছে মু’মিনদের জন্য”। সূরা আন-নূর আয়াত ২-৩

কতটা অসভ্য হলে, কতটা নির্মম হলে কাউকে নরপশু বলা যায়? বাংলা ভাষায় নিকৃষ্ট মানুষকে বিশেষিত করার উপযুক্ত শব্দের বড়ই অভাব। কখনো কখনো মানুষ অপরাধের এতটাই অতলে ঢুবে যায় যে তাকে নরপশু বলে বিশেষিত করলে পশুদেরও অপমান করা হয়। মানুষ এতটাই নীচে নামতে পারে যে কুকুর কিংবা হায়েনার পক্ষে অতটা অসভ্য হওয়াও অসম্ভব। Continue reading “নরপশুদের পাথর নিক্ষেপে হত্যার অনুমতি চাই”