পিলখানা হত্যাযজ্ঞের রিপোর্ট প্রকাশের জন্য নিষিদ্ধ হলো দৈনিক আমার দেশ

বন্ধ হয়ে গেল অত্যন্ত জনপ্রিয় বাংলা পত্রিকা দৈনিক আমার দেশ। গ্রেফতার করা হলো পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে। অত্যন্ত হাস্যকর অভিযোগ দিয়ে গ্রেফতার করা হলো তাকে। তাকে গ্রেফতারের জন্য আগেই পত্রিকাটির প্রকাশক হাশমত আলী হাসুকে গোয়েন্দা সংস্থা গ্রেফতার করে দীর্ঘ ৫ ঘন্টা আটকে রেখে দু’টি সাদা কাগজে স্বাক্ষর করতে বাধ্য করে। পরে ঐ স্বাক্ষরিত কাগজের মাধ্যমে মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে প্রতারণা মামলা দায়ের করা হয় এবং আজ ভোর রাতে তাকে গ্রেফতার করা হলো। এর আগে রাত ১১টার সময় পত্রিকাটি বন্ধ করে দেয়া হয়। প্রতারণার অভিযোগে শুধু মাহমুদুর রহমানকে গ্রেফতার করা হলে বিষয়টি সাধারণ মানুষকে কিছুটা হলেও বিভ্রান্ত করতে পারতো কিন্তু পত্রিকাটি বন্ধ করে দেয়ায় সরকারের হীণ উদ্দেশ্য স্পষ্ট হয়ে ওঠে।

তাহলে এমন কি ঘটেছে যে কারণে বন্ধ হলো পত্রিকাটি? ঘটনার আড়ালের ঘটনাই বা কি? এর উত্তর খুঁজতে একটু পেছনের দিকে তাঁকাতে হয়। কয়েকদিন আগে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানা, প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃতভাবে উপস্থাপনের জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক ওয়েবসাইট ও বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বাধিক ব্যবহৃত ওয়েবসাইট ফেসবুক সরকার বন্ধ করে দেয়। এরও কিছু আগে ভিজিও ব্লগ ইউটিউবও সরকার নিষিদ্ধ করেছিল। এ সবগুলো ঘটনা একই সূত্রে গাঁথা, একটাই মাত্র সুস্পষ্ট কারণে এসব পত্রিকা ও ওয়েবসাইট নিষিদ্ধ হলো। Continue reading “পিলখানা হত্যাযজ্ঞের রিপোর্ট প্রকাশের জন্য নিষিদ্ধ হলো দৈনিক আমার দেশ”

যুদ্ধাপরাধ ও ন্যায় বিচার

বিচার ব্যবস্থা নিয়ে কোন কথা বলার সুযোগ নেই, আদালত অবমাননা হয় তাতে। তবুও মুখ বুজে সব কিছু মেনে নিলে নিজেকে গাধা মনে হয়, চোখবুজে সত্যকে যে আড়াল করা দায়। বিশ্বে মানবাধিকার লংঘন নতুন কিছু নয়। অথচ ন্যায় অন্যায়ের ভেদাভেদ না করে কাউকে দোষী সাব্যস্ত করা কোন সভ্য সমাজেই স্বীকৃত নয়। বাংলাদেশ তৃতীয় বিশ্বের দূর্ণীতিতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় এখানে মানবাধিকারের লংঘনের হারও বেশী। বিশেষ করে সরকারের অনৈতিক হস্তক্ষেপে ন্যায়বিচার প্রতিনিয়ত ব্যহত হয় এদেশে। নিম্নআদালত থেকে সরকার বিরোধী কেউ সহজে জামিন পেয়েছে এমন ঘটনা ভাবা যায় না এখানে। Continue reading “যুদ্ধাপরাধ ও ন্যায় বিচার”