তথ্য সন্ত্রাসের মাঝেও জামায়াত জয়ী

কিছুদিন ধরে জামাত শিবির নিয়ে ব্যাপক হৈ চৈ পড়ে গেছে মিডিয়া পাড়ায়। প্রতিদিন সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়ে প্রচারিত হচ্ছে জামাত শিবির সংশ্লিষ্ট সংবাদগুলো। কখনো টক শো, কখনো বিশাল বিশাল কলাম, কখনো পাঠক জরিপ। এ ধরণের একটি জরিপ দেখলাম গতকালের আমাদের সময় পত্রিকায়। “একাত্তরে ভিন্ন মত থাকলেও মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ করেনি। জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামীর এই বক্তব্য সমর্থন করেন? ”  আশ্চর্যের বিষয় এই যে জরিপে জামাতের পক্ষে ভোট পরেছে ৯৯০৮টি, বিপক্ষে ৩১৬টি এবং মন্তব্য করেন নি ৬ জন।
একই ধরণের আরেকটি জরিপ চলছে আজ দৈনিক সমকাল পত্রিকায়। প্রশ্নটি এমন, “জামায়াতের কোন নেতাকে যুদ্ধাপরাধী প্রমাণের সাধ্য কারো নেই-মতিউর রহমান নিজামীর এ বক্তব্য কি গ্রহণযোগ্য?”। রাত ৮টা ৯ মিনিট পর্যন্ত এ  প্রশ্নে হ্যা ভোট পরে  ৩৪২২টি, না ২০৭টি এবং মন্তব্য নেই ১৫ টি। অর্থাৎ ৯৩.৯১% জামায়াতের পক্ষে ভোট পরে। কিন্তু কি আশ্চর্য এরপরই মিডিয়া ক্যু ঘটে যায়, অনৈতিকভাবে ভোটে কারচুপি করে দৈনিক সমকাল কর্তৃপক্ষ। হ্যা ভোট কমিয়ে মাত্র ১০০তে নামিয়ে আনা হয়। এ দ্বারা পত্রিকাটি যে হীণ উদ্দেশ্য নিয়ে জনমত জরিপ চালাচ্ছে তা স্পষ্ট হয়ে ওঠে। যদিও এতে সাধারণ মানুষও ক্ষেপে ওঠে। যারা ভোট দেন নি, বা যারা ভোট দেয়ার ব্যাপারে খুব একটা উৎসাহী নন তারাও ঝাপিয়ে পড়েন অন্যায়ের বিরুদ্ধে, ফলে হ্যা ভোট আবারো বাড়তে থাকে হু হু করে। রাত ১০:৪৪ পর্যন্ত হ্যা ভোটের পরিমাণ ২৭০০, না ভোট ১৬৯৮ অর্থাৎ হ্যা পেয়েছে ৬১.২৪% ভোট, না পেয়েছে ৩৮.৫১% ভোট। যদিও রাত আটটার হ্যা ভোটের কাছাকাছি এখনো পৌছুতে পারে নি কোন পক্ষই। কিন্তু এভাবে নির্লজ্জ তথ্য সন্ত্রাস করে কি জামাত শিবিরকে দমন করা সম্ভব? Continue reading “তথ্য সন্ত্রাসের মাঝেও জামায়াত জয়ী”