আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না দিলে কি বুঝবোই না আওয়ামী লীগ ইসলামের বিলুপ্তি চায়?

আজ শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগ আয়োজিত যুদ্ধাপরাধ ও জামায়াতের রাজনীতি শীর্ষক এক আলোচনা সভায় আইন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, বিশ্বের আর কোন দেশে মাদ্রাসা বোর্ড নামে কোন শিক্ষা বোর্ড নেই। অবিলম্বে মাদ্রাসা বোর্ড বন্ধের মাধ্যমে জঙ্গি উৎপাদনের কারখানা বন্ধ করা হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি। সম্মানিত পাঠক, একটু খেয়াল করুন, অনুষ্ঠানটি যুদ্ধাপরাধ ও জামায়াতের রাজনীতি শীর্ষক, অথচ আলোচনায় উঠে এসেছে মাদরাসা শিক্ষাকে বন্ধ করার প্রসঙ্গ। তাহলে একবার ভাবুন, যুদ্ধাপরাধ যুদ্ধাপরাধ বলে সরকার এত যে হৈহুল্লোর করছে তার আসল উদ্দেশ্যটা কি? হ্যা, আশাকরি আপনারা ঠিকই ধরতে পেরেছেন, উদ্দেশ্য আর কিছুই নয়, বাংলাদেশ থেকে ইসলামী মূল্যবোধ পুরোপুরি নিশ্চিহ্ন করে দেশটিকে ধর্মহীন, নৈতিকতাবিবর্জিত একটি ব্রাহ্মণ্যবাদী বাজারে পরিণত করা। মূলত জামায়াতে ইসলাম কিংবা ইসলামী ঐক্যজোট কিংবা ইসলামী আন্দোলন কোন কিছুই ওদের মূল টার্গেট নয়, বরং টার্গেট একটাই, ইসলাম। বিশেষ করে বিগত কয়েক যুগে দেশে ইসলাম সম্পর্কে ব্যাপক গবেষণা হয়েছে, সাধারণ মুসলমানদের মাঝে ইসলামকে জেনেবুঝে মানার ক্ষেত্রে ব্যাপক অগ্রগতি হয়েছে এবং ইসলাম যে নিছক একটি ধর্ম নয়, পাঞ্জেগানা নামাজ নয় বরং ইসলাম একটি পরিপূর্ণ জীবন বিধানের নাম এ সত্যটি ধীরে ধীরে প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে। আর এটাকেই আওয়ামী লীগ তাদের রাজনীতির জন্য অশনি সংকেত হিসেবে নিয়ে ইসলাম বিরোধী তৎপরতায় লিপ্ত হয়েছে। Continue reading “আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না দিলে কি বুঝবোই না আওয়ামী লীগ ইসলামের বিলুপ্তি চায়?”