মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন আওয়ামী লীগের ৪৩ গণপরিষদ সদস্য!!!

স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন ১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের হয়ে নির্বাচিত ৪৩ জন গণপরিষদ সদস্য। আজ ২২ সেপ্টেম্বর ২০১০, বুধবার জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তর পর্বে আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ এ তথ্য জানান। আইনমন্ত্রী সাধারণত কম কথা বলেন, অবশ্য তার মন্ত্রনালয়ে কামরুল ইসলাম নামের যে কলের গানটি আছে তা  শুধু আইন মন্ত্রণালয় নয়, পুরো সরকারের বলা না বলা কথাগুলো উদ্গীরণ করে যাচ্ছে। তবুও আইনমন্ত্রী মাঝে মাঝেই যে দু’একটি কথা বলেন তা আওয়ামী লীগের অপরাজনীতির মুখোশ উন্মোচনের জন্য যথেষ্ট। এতদিন আওয়ামী লীগ একচেটিয়ে ভাবে মুক্তিযুদ্ধকে যেমন তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি দাবী করে আসছিল, আইনমন্ত্রীর এ বক্তব্যে কিছুটা হলেও জোঁকের মুখে নুণের ছিটে লাগবে। যদিও সংসদেই এর তীব্র বিরোধিতা হয়েছে, তোফায়েল আহমেদ আপত্তি জানিয়েছেন এমনকি ডেপুটি স্পিকার শওকত আলীও প্রতিবাদ করেছেন। স্পীকার যে কখনোই নিরপেক্ষ হয় না, নিরপেক্ষতার ঠুনকো ছদ্মবেশ ধারণ করে থাকে তারও একটা নজির হয়ে থাকবে আজকের সংসদ। Continue reading “মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত ছিলেন আওয়ামী লীগের ৪৩ গণপরিষদ সদস্য!!!”