তৌহিদকে মনে পড়ে

ক্রিং ক্রিং টেলিফোনের শব্দ বিরক্তিকর অফিসের কাজকে আরো তিক্ত করে তুলে।
তারপরও রিসিভার কানে ঠেকাতে হয়, না জানি কোন রাঘোব বোয়াল ওত পেতে আছে ফোনের ওপারে খুঁত ধরার আশায়।
রিসিভারটা কানে ঠেকাতেই মনটা আনন্দে ভরে গেল। চৈত্রের দুপুরে যেন একপশলা বৃষ্টি ভিজিয়ে দিল মনের খটখটে জমিনটা।মনে হলো আমি যেন হাজার বছর ধরে এ ফোনেরই অপেক্ষায় ছিলাম। Continue reading “তৌহিদকে মনে পড়ে”