হুমকির মুখে দেশ, দেশবাসী হুশিয়ার !!!

বাংলাদেশ শিক্ষাক্ষেত্রে এখনো অনেক পিছিয়ে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা, নৈতিক শিক্ষা, ইতিহাসের শিক্ষা সককিছুই অপূর্ণাঙ্গ। এখনো নাম দস্তখত করাকেই শিক্ষিত হওয়ার মাপকাঠি ধরা হয়। আর সেই শিক্ষিতের হারও ৬৫% এর নীচে । শিক্ষা বিস্তারে, শিক্ষার উন্নয়নে তাই সরকার বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করেছে। আর এ কথা কে না জানে যে জাতীয় বাজেটের সবচেয়ে বড় অংশটিই বরাদ্দ করা হয় শিক্ষা খাতে।

বর্তমান আওয়ামী সরকার শিক্ষাকে যে কতটুকু গুরুত্ব দেয় তার প্রমাণ ইতোমধ্যেই দেশবাসী চাক্ষুষ করেছেন। বিশেষ করে ইতিহাস শিক্ষার ব্যাপারে তাদের যে প্রয়াস-প্রচেষ্টা তা বিশ্বে অনন্য দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে। যুদ্ধাপরাধী ইস্যু নিয়ে ইতোমধ্যে দেশকে সুস্পষ্ট দু’টি শিবিরে বিভক্ত করেছে, যার একটি অংশ রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসে ইতোমধ্যেই বিপর্যস্ত। জামাত শিবিরকে সমূলে নির্মূলের জন্য স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী মিটিং ডেকে নির্দেশনা দিয়েছেন, স্বরাষ্টমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী দেশব্যাপী শিবির নিধনে চিরুনী অভিযানের নিদের্শ দিয়েছেন। এ দ্বারা তারা জাতিকে ইতিহাস শেখানোর মহতি আয়োজন করেছেন, আর সে ইতিহাস বাকশালী ত্রাসের ইতিহাস, সে ইতিহাস একদলীয় স্বৈরতন্ত্রের ইতিহাস। তবে সমস্যা একটাই, তারা নিজেরাই ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে পারে নি, একদলীয় ফ্যাসিস্ট বাকশালী স্বৈরতন্ত্রের অবসান যে কত নির্মমতায় হয়েছিল তা তারা বেমালুম ভুলে গেছে। এ প্রজন্ম বাকশালের বিভৎস চেহারা দেখেনি, তাই বাকশালী বায়োস্কোপের রমরমা সরকারী আয়োজন। আমরা পঁচাত্তর পরবর্তী প্রজন্ম ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেয়ার অপেক্ষায় রইলাম। Continue reading “হুমকির মুখে দেশ, দেশবাসী হুশিয়ার !!!”