ভালোবাসার অধিকার দেব না ছেড়ে

মা। মায়ের চেয়ে শ্রুতিমধুর, মায়ের চেয়ে আবেগঘন, মায়ের চেয়ে শক্তিশালী কোন শব্দ পৃথিবীর কোন ভাষাবিদ পেরেছে কি আজো বানাতে? নিশ্চয়ই নয়। এ মায়ের মুখের হাসির জন্য যুগে যুগে দিয়েছে প্রাণ লাখো কোটি তাজা প্রাণ, প্রাণ দিয়েছে মায়ের সম্মানে, মায়ের কল্যাণে, মায়ের অশ্রু মোচনে। মায়ের ভাষার জন্য প্রাণ দিয়েছে সালাম বরকত রফিক জব্বারের মতো বীর সন্তানেরা, জন্মভূমিকে শত্রুমুক্ত করতে জীবনবাজী রেখেছে হামিদুর, মতিউর, জাহাঙ্গীরের মতো লাখো বীর জনতা।

মাকে ভালোবাসেনা এমন সন্তান বিরল, মাকে ভালোবেসে বরং সীমা ছাড়ায় অনেকে। মায়ের ভালোবাসায় অন্ধ হয়ে জবাই করেছিল মাদারীপুরের পাচখোলার সন্তান।  খুন করে বলেছিল হেসে মাকে, “জান্নাতে পাঠালাম তোমায়, মাথায় নিলাম তুলে যদি করে থাকো কোন পাপ”। এমন মা ভক্ত সন্তান কাম্য নয় কারো, বদ্ধ পাগল ওরা। ওরা মায়ের সম্মান জানে না, ন্যায় অন্যায়ের বিচার জানে না, মাকে ভালোবেসে শত্রুর হাতে তুলে দিতেও কাঁপে না ওদের হাত।

যে সন্তান আজন্ম মাকে জেনেছে মা বলে, অকৃতিমভাবে বেসেছে ভালো, মায়ের আনন্দে হেসেছে, চিৎকার করে কেঁদেছে মায়ের দুঃখে, তাকে যদি বলো, ও তোর মা-ই নয়, না তুই ওর সন্তান, তবে কি সে মাকে করে কভূ অস্বীকার? ভুলে কি যায় মায়ের যত আদর যত্ন ভালোবাসা? কক্ষোনো নয়, গর্ভেধারণ না করেও যদি কেউ মা হয়ে যায় ভালোবাসার বন্ধনে, তবে তাকে দূরে ঠেলে দেয়ার হিম্মত হয় না কোন সন্তানের। তেমনি বলে যদি কেউ ধর্ষিতা মায়ের সন্তান, তবে ফেরাবে কি সে মুখ ঘৃণায়? মা তো সে মা-ই, গর্ভে করেছে ধারণ, করেছে লালন, দেখিয়েছে পৃথিবীর সব আলো, দেখিয়েছে বিচিত্র পৃথিবীর মুখ। তবে তাকে ঘৃণা করি কোন পূণ্যবলে? তুচ্ছ করা যায় কি মায়ের আদর অতীতের কারো অপরাধে।

আমার সোনার বাঙ্লা, আমি তোমায় ভালোবাসি সুরে সুরে আর্দ্র এ মন, হৃদয় গলে গলে দু’চোখে ভালোবাসার বান, তবু ওরা হৃদয় থেকে মায়ের ছবি মুছে দিতে চায়। স্বাধীনতার পরে জন্মেছি, তোমার ভালোবাসায় বেড়ে উঠেছি, তোমারা আদরে আদরে, স্নেহ ভালোবাসায় মানুষ হয়েছি তবু ওরা বলে তুমি নাকি আমার মা নও। ওরা ভালোবাসার দোহাই দিয়ে রক্তাক্ত করে তোমার হৃদয়, চোখ বেঁধে টেনে নিতে চায় সীমাহীন অনিশ্চয়তার মাঝে। কিন্তু ওরা জানে না, যে সন্তানের দেহ পরিপুষ্ট মায়ের স্তনে, যে সন্তানের শিরায় শিরায় রক্তের বাণ ডেকে যায় মায়ের ভালোবাসায়, যে সন্তানের সাথে আছে বাঙলা মায়ের নারীর টান, সে সন্তানের দেহে একফোঁটা রক্তবিন্দু থাকতে কি কেউ কেড়ে নিতে পারে মা মা বলে কাঁদার অধিকার, ছিনিয়ে পারে কি নিতে মমতাময়ী মায়ের নির্ভরতার আঁচল। হিম্মত থাকে তো হাত বাড়াও মায়ের আচলে, প্রাণ দিয়ে রুখবো দানব, বাঙ্লা মায়ের সম্মানে।

Be Sociable, Share!

এ লেখাটি প্রিন্ট করুন এ লেখাটি প্রিন্ট করুন

“ভালোবাসার অধিকার দেব না ছেড়ে” লেখাটিতে একটি মন্তব্য

  1. মোঃ খলিলুর রহমান বলেছেন:

    ভাই তুমি বেশী দিন বেচে থাক

    [উত্তর দিন]

মন্তব্য করুন