নিজামী, মুজাহিদ, সাঈদীসহ সকল রাজবন্দীর মুক্তি চাই

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর, সাবেক সফল কৃষি ও শিল্পমন্ত্রী মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, জামায়াত সেক্রেটারি জেনারেল, সাবেক সফল সমাজকল্যাণমন্ত্রী আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদ এবং জামায়াত নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীকে আজ মঙ্গলবার ২৯ জুন ২০১০ বিকালে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। দেশব্যাপী গ্রেফতার করা হচ্ছে শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দদের। চলছে বিক্ষোভ মিছিল। বিক্ষোভ দমনে আওয়ামী বর্বর পুলিশের পৈশাচিক নির্যাতনে ইতোমধ্যেই দেশব্যাপী শতাধিক নেতা-কর্মী গুরুতর আহত হয়েছেন। ইতোমধ্যেই দেশব্যাপী আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগের ক্যাডার বাহিনী জামাত-শিবির বিরোধী মিছিল করেছে। ভয়াবহ সংঘর্ষের আশংকায় বিভিন্ন স্থানে রাস্তাঘাট ফাঁকা হয়ে গেছে, দোকানপাট বন্ধ রেখেছে ব্যবসায়ীরা। অনিশ্চয়তার দিকে ধেয়ে চলেছে দেশ।

গত ১৭ মার্চ মগবাজারে আল ফালাহ মিলনায়তনে বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্র শিবিরের এক সভায় মহানগর আমীর রফিকুল ইসলাম খান এবং দেলোয়ার হোসেন সাঈদীর বক্তব্যের বিকৃত ব্যাখা উপস্থাপন করে ২১ মার্চ দলের পাঁচ জন শীর্ষস্থানীয় নেতার বিরুদ্ধে মামলা করে বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের মহাসচিব সৈয়দ রেজাউল হক চাঁদপুরী। ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার মামলায় জামায়াতে ইসলামীর আমীর মতিউর রহমান নিজামীসহ চারজনের বিরুদ্ধে দুপুরে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে আদালত।

অথচ কতই না হাস্যকর মামলায় গ্রেফতার করা হলো তাদের। কি কারনে তাদের এই গ্রেফতার তা পাওয়া যায় জামায়াত বিরোধী পত্রপত্রিকার সংবাদে।  দৈনিক প্রথম আলোর ১৮ মার্চ ২০১০ সংখ্যার শিরোনাম ছিল, “জামায়াত নেতা বললেন, মহানবী (সাঃ) এর বিরুদ্ধেও ষড়যন্ত্র হয়েছে, এখন নিজামীর বিরুদ্ধেও হচ্ছে“।  রিপোর্টে প্রকাশ, “বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রফিকুল ইসলাম খান বলেন, ‘মহানবী যখন ইসলামের দাওয়াত দিয়েছেন, তখন তাঁকে সামাজিকভাবে বয়কট করা হয়েছে, তাঁর ওপর অত্যাচার করা হয়েছে, উটের পচা নাড়িভুঁড়ি মাথায় ঢেলে দেওয়া হয়েছে, মিথ্যাচার করা হয়েছে, ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। তেমনি বাংলাদেশে নিজামী সাহেব জামায়াতে ইসলামীর আমির হওয়ার পর তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করা হয়েছে। সাঁথিয়া (পাবনার উপজেলা) থেকে হাড়গোড় নিয়ে এসে তাঁকে খুনি বানানো হয়েছে।’… তিনি বলেন, ‘ইসলামের দাওয়াত দেওয়ার সময় মহানবী (সা.)-এর বিরুদ্ধে মিথ্যাচার, ষড়যন্ত্র হয়েছে। তেমনি আজ বাংলাদেশে নিজামীর বিরুদ্ধেও মিথ্যাচার ও ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।’

لَّقَدۡ كَانَ لَكُمۡ فِىۡ رَسُوۡلِ اللّٰهِ اُسۡوَةٌ حَسَنَةٌ

তোমাদের জন্য আল্লাহর রসূলের মধ্যে রয়েছে উত্তম আদর্শ -সূরা আল আহযাব।

যেখানে আল্লাহ সুস্পষ্টভাবে উল্লেখ করেছেন, রাসূল (সাঃ) মুসলিমদের আদর্শ, তাহলে যেকোন কাজের সময় মানদন্ড হিসেবে তার চরিত্রের সাথে যদি তুলনা করা হয় তবে তাতে কি অপরাধ তা কারো বোধগম্য নয়। রাসূল (সাঃ) কে আদর্শ মেনে তার দেখানো পথে চলতে চায় জামায়াতে ইসলামীর সকল নেতা-কর্মী। আর তাই তো তাদের সকল কাজের প্রেরণা, সকল কাজের আদর্শ  তিনি। যখনই বিপদে পড়ে জামায়াত, তখনই তারা তার চরিত্রের কাছে ছুঁটে যান তারা, মিলিয়ে দেখেন কোন ভুল হলো কিনা, নাকি রয়েছে তারা তারই দেখানো সঠিক পথে। তাই যারা রাসূল (সাঃ)কে আদর্শ মানে, তার আদর্শ প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখে বাংলাদেশে, তাদেরকে যদি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অযুহাতে নীপিড়ন চালানো হয় তাহলে বুঝতে অসুবিধা হয় না যে, আওয়ামী লীগআসলেই ইসলাম ধর্মের অনুভূতির কথা বলে না, বরং ব্রাহ্মণ্যবাদী ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত যে লেগেছে তা স্পষ্ট। তাই যারা এদেশের পৈতা-তিঁলকের সংস্কৃতি চালু করতে চায়, যারা চায় ইসলামের সুমহান আদর্শকে বাংলাদেশে থেকে উচ্ছেদ করে রাম রাজত্ব কায়েম করতে, ইসলামী তৌহিদী জনতা শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও সে অশুভ ষড়যন্ত্র প্রতিরোধ করতে পিছপা হবে না।

অবিলম্বে সকল রাজনৈতিক নেতার মিথ্যে, বানোয়াট এবং হয়রানিমূলক মামলা প্রত্যাহার করে নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করছি।

যুক্তরাজ্যে বিক্ষোভ সমাবেশ, হাইকমিশ ঘেরাও

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী,সেক্রেটারী জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ ও নায়েবে আমীর মাওলানা দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর গ্রেফতারের প্রতিবাদে শতশত বিক্ষুব্ধ প্রবাসী জনতা তাৎক্ষনিকভাবে যুক্তরাজ্য হাইকমিশন ঘেরাও করে।সেইভ বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ব্যারিষ্টার নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে উক্ত ঘেরাও কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন ব্যারিষ্টার আবুবকর মোল্লা, ব্যারিষ্টার আবু সায়েম, সাবেক ছাত্র নেতা মহিবুল্লাহ,সাবেক ছাত্রনেতা বদরে আলম দিদার সহ অনেক স্থানীয় কমিউনিটি নেতা।

বক্তারা বলেন ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে সরকারের উপদেষ্টা এইচ টি ঈমাম, আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর ব্যাপারে সরকার কোন পদক্ষেপ নেয়নি বরং তাদেরকে আগাম জামিন দিয়ে দেয়া হয়েছে।অথচ একই ধরনের মিথ্যা অভিযোগে রাজনৈতিকভাবে হয়রানীর উদ্দেশ্যে সরকার জামায়াতের নেতাদের গ্রেফতার করে।তারা সরকারের এই পদক্ষেপের তীব্র নিন্দা জানান এবং অবিলম্বে তাদের মুক্তির দাবী করেন।

ব্যারিষ্টার নজরুল বলেন, ধর্ম যাদের দৈনন্দিন কাজের অংশ, যারা আল্লাহর বিধানকে প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে আন্দোলন করে যাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ ভিত্তিহীনই নয় বরং তাদের নামে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে দেশবাসীর সামনে হেয় করাই সরকারের আসল উদ্দেশ্য।তিনি অবিলম্বে তাদের মুক্তি দাবী করেন অন্যথায় দেশেবিদেশে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলার ডাক দেন।

জামায়াতের বিবৃতি

আজ ২৯ জুন বিকেলে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ও সাবেক মন্ত্রী মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, নায়েবে আমীর মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী এবং সেক্রেটারী জেনারেল ও সাবেক মন্ত্রী জনাব আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদকে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমীর ও সাবেক মন্ত্রী মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী আজ ২৯ জুন বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে ন্যাশনাল ডর্ক্টস ফোরামের একটি আলোচনা সভায় বক্তব্য দেয়ার জন্য জাতীয় প্রেসক্লাবে গেলে প্রেসক্লাবের সামনে থেকে তাঁকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। সংগঠনের নায়েবে আমীর মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে ঢাকা মহানগরীর শহীদবাগে অবস্খিত তার বাসা থেকে এবং সেক্রেটারী জেনারেল ও সাবেক মন্ত্রী জনাব আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদকে ফরিদপুর যাওয়ার পথে সাভার থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের এক বৈঠক আজ সন্ধ্যা ৬টায় সংগঠনের নায়েবে আমীর জনাব মকবুল আহমাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে সংগঠনের আমীর ও সাবেক মন্ত্রী মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, নায়েবে আমীর মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী এবং সেক্রেটারী জেনারেল ও সাবেক মন্ত্রী জনাব আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং অবিলম্বে তাদের মুক্তি দাবী করা হয়। বৈঠকে অভিমত ব্যক্ত করা হয় যে, সরকার রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার জন্যই জামায়াত নেতৃবৃন্দকে গ্রেফতার করেছে। সরকার সুষ্ঠুভাবে দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হওয়ার কারণে জনগণ এ সরকারের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। ব্যর্থতা ঢাকা দেয়ার জন্যই সরকার বিরোধী দলের ওপর দমন-পীড়ন, অত্যাচার-নির্যাতন শুরু করে দিয়েছে। এভাবে বিরোধীদলের ওপরে অত্যাচার-নির্যাতন চালিয়ে অতীতে কোন সরকার ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারেনি। এ সরকারও পারবে না।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নির্বাহী পরিষদ মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী ও জনাব আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও নি:শর্ত মুক্তির দাবীতে আগামীকাল ৩০ জুন সারা দেশে বিক্ষোভ সমাবেশের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে।

ঘোষিত এ কর্মসূচি সফল করার জন্য সংগঠনের সকল শাখার প্রতি উদাত্ত আহবান জানিয়ে দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করা হয়েছে।

Be Sociable, Share!

এ লেখাটি প্রিন্ট করুন এ লেখাটি প্রিন্ট করুন

“নিজামী, মুজাহিদ, সাঈদীসহ সকল রাজবন্দীর মুক্তি চাই” লেখাটিতে 4 টি মন্তব্য

  1. Daniel বলেছেন:

    Sotter pothe ahoban kari netader sahajjo asbe Allah er torof theke. Asbe e. Sooto somagoto, Mittha oposarito.

    [উত্তর দিন]

  2. আদিল আব্বাস বলেছেন:

    আল্লাহ তাদের সম্মানের সাথে মুক্তি দিবেন, আমিন

    [উত্তর দিন]

  3. কাঙ্গাল বলেছেন:

    নিজামী ও মুজাহিদ সাঈদীসহ সকল রাজ বন্দীর মুক্তি চাই।

    [উত্তর দিন]

  4. অশ্রান্ত পথিক বলেছেন:

    Insha’Allah, our leaders will come back safely! Truly, “Truth is exposed, False is perished, for False is bound to be perished.”
    Oppression can’t suppress the truth, truth will come one day anyhow, anytym….insha’allah!

    [উত্তর দিন]

মন্তব্য করুন