বরিশাইল্যা

কাজল ভাই আর আমি এক হলে আলোচনা জমে ভালো। দু’জনই আঞ্চলিকতার ঘোর বিরোধী। কাজল ভাই নোয়াখালীর ছেলে হয়েও কখনো নোয়াখালী নিয়ে গর্ব করেন না, আমি বরিশাইল্যা বলে পরিচয় দিতেও কোন লজ্জা বোধ করি না। তাই কোন মজলিসে আঞ্চলিকতা নিয়ে আলোচনা শুরু হলে আমি বরিশালের চৌদ্দগুষ্ঠি উদ্ধার করি, কাজল ভাই করেন নোয়াখালী। আলাচনা যখন উত্তেজনায় রূপ নেয় তখন আমি হেসে বলি, ভাই, ভালো বলেন, মন্দ বলেন, দেশে জেলা বলতে তো ঐ দুটোই, বরিশাল আর নোয়াখালী। এতে কিছুটা কাজ হয়, পরিবেশটা হালকা হয়, কিন্তু সমাধান হয় না।
এস.এস.সি পাশের পূর্বে বরিশাইল্যা বলে কোন শব্দের সাথে পরিচয় ছিল না। লেখাপড়ার সূত্রে বরিশাল অঞ্চল ছাড়ার পর প্রতি পদে পদে আমাকে বরিশাইল্যা আর নোনা কাটা গালি হজম করতে হয়েছে। ইচ্ছে করলে আমি বরিশালের পক্ষে একগাদা দলিল পেশ করে বরিশালের গুণকৃর্ত্তন করতে পারতাম। বলতে পারতাম জীবনানন্দ দাশের রূপসী বাংলাকে গান্ধীজী ‘সদা জাগ্রত বরিশাল’ বলে সম্বোধন করতেন, কিন্তু তাতেই কি সমাধান হতো।
আমার সবচেয়ে কাছের বন্ধু রিক্তা। ওকে আমি দিদি বলে ডাকি, ও ডাকে দাদা বলে। আমার ভালো বন্ধুর সংখ্যা কম না হলেও রিক্তার বন্ধু বলতে আমিই একা। ও ই বলে যে আসার সাথে ওর যত শখ্যতা তা ওর বান্ধবীদের সাথেও নেই। তো যার আমি এত প্রিয় সেই বন্ধুই একদিন হেসে হেসে বলল, দাদা, তোমার বাড়ী বরিশালে তা যদি আগে জানতাম তবে হয়তো বন্ধুত্বই হতো না। তার এমন সরল স্বীকারোক্তিতে আমি হতবাক হয়ে যাই। ভাগ্যিস আমার বরিশাইল্যা পরিচয়টা ও অনেক পরে পেয়েছে, শুধুমাত্র সংকীর্ণ আঞ্চলিকতার জন্য আমাদের এত চমৎকার বন্ধুত্ব হারাতে হতো, আমি ভাবতেই পারি না।
মাঝে মাঝে সংবাদ পত্রের দু’একটা খবর আমাকে খুব আহত করে। “বরিশারের কুদ্দুস স্ত্রী-সন্তান হত্যা করে পালিয়েছে”-এ জাতীয় সংবাদ কি আঞ্চলিকতা দোষে দুষ্ট নয়। বগুড়া বা সিলেটের কোন ক্রিমিনাল যদি একই অপরাধ করে তখন কিন্তু শিরোনাম হয় না “সিলেটের/বগুড়ার কুদ্দুস স্ত্রী-সন্তানদের হত্যা করে পালিয়েছে”, অন্তত এমন শিরোনাম আজ পর্যন্ত আমার চোখে পরেনি। সংবাদ পত্রকে ফোর্থ স্টেট বলা হয়। জাতির বিবেক বা সমাজের দর্পণ নামেও এর ব্যাপক পরিচিতি। কিন্তু সংবাদ পত্রগুলো মাঝে মাঝে পারা ওঠা আয়নার মতো বিকৃত প্রতিফলন ঘটিয়ে জাতিকে কি দিকনির্দেশনা দেয় আমার বুঝে আসে না।
আমার মা আমার কাছে পৃথিবীর সবচেয়ে আপন। মা ও আমার সুখের জন্য করতে পারেন না এমন কাজ পৃথিবীতে বিরল। তাই বলে কি আমি দাবী করতে পারি যে আমার মা-ই পৃথিবীর সেরা মা। মা-তো মা-ই, সে আমার হোক বা অন্যের, সে সবার সেরা। তেমনি আমি রবিশাইল্যা বলে বরিশালের জন্য আলাদা মমতা, নাড়ীর টান অনুভব করি। তাই বলে অন্য অঞ্চলকে গালি দেয়ার অধিকার আমার নেই।
আমরা কেন এই বিশ্ব জননীর সন্তান হিসেবে নিজেদেরকে ভাবতে পারি না, কেন আমাদের চিন্তা চেতনা বর্শার বিষাক্ত ফলার মতো দেশ ভেদ করে অঞ্চল, অঞ্চল থেকে গোষ্ঠী, গোষ্ঠী থেকে পরিবারের কেন্দ্রে আঘাত হানে। আঞ্চলিকতার শেকল ছিন্ন করে আমরা কি আমাদের সত্ত্বাকে স্বেত কপোতের মতো আকাশের নীলে উড়িয়ে দিতে পারি না।

Be Sociable, Share!

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।